ঢাকা ০৭:০৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
টপ নিউজ :
কুষ্টিয়ায় পুুকুরে ডুবে তিন শিশুর মৃত্যু মরদেহ ফেরত পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবী পরিবারের চল্লিশ উর্ধ বয়সী স্কাউটারদের পায়ে হেঁটে ৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণে যাত্রা বেইলি রোডে আগুনে প্রাণ গেল ২ সাংবাদিকের কাচ্চি ভাই নয়, নিচের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত: র‌্যাব বেইলি রোডে আগুন: মৃতের সংখ্যা বাড়ার কারণ জানালেন চিকিৎসক ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রামের নির্মাণাধীন হিমাগারের আগুন বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাষ্ট্রপতির শোক বেইলি রোডের আগুন লাগা বহুতল ভবনটিতে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না: প্রধানমন্ত্রী ভবনে ভেন্টিলেশন ছিল না, নিহতরা ধোঁয়ায় মারা গেছেন

হাঙ্গেরিতে অনুপ্রবেশের সময় ৪৩ বাংলাদেশি আটক

  • নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০২:৪৮:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 50

রোমানিয়া থেকে হাঙ্গেরিতে অনুপ্রবেশের সময় ৪৩ জন বাংলাদেশিসহ ৬০ জন অভিবাসী আটক হয়েছেন। ৪৩ জন বাংলাদেশি নাগরিক ছাড়া আটক বাকি ১৭ জন ভারত, পাকিস্তান ও নেপালের নাগরিক। আলাদা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে রোমানিয়া সীমান্ত পুলিশ।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) প্রথম বিজ্ঞপ্তিতে দেশটির সীমান্ত পুলিশ জানায়, সেদিন ভোরে ভারসান্ড বর্ডার পয়েন্ট কর্মরত সীমান্তরক্ষীরা ২২ জন বিদেশি নাগরিককে শনাক্ত করেছেন। তারা অনিয়মিত পথে হাঙ্গেরি সীমান্ত পার হওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

২২ অভিবাসীর মধ্যে ৮ জনের একটি দলকে এক রোমানিয়ান নাগরিকের গাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জানা গেছে, ৮ অভিবাসীর সবার বয়স ২১ থেকে ৩৬ বছর। তারা সবাই বাংলাদেশি নাগরিক। তাদের সবাই কাজের অনুমতি নিয়ে নিয়মিত পথে রোমানিয়ায় এসেছেন।

একই দিন টার্নু বর্ডার পুলিশ সেক্টরের কর্মকর্তারা সীমান্ত থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে একটি অভিযান চালায়। এ সময় কয়েকজনকে লোককে হাঙ্গেরির দিকে হেঁটে যেতে দেখলে বাধা দেয় পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে, সংশ্লিষ্ট ১৪ জন বিভিন্ন দেশ থেকে আসা অভিবাসী। তারা পাকিস্তান এবং নেপালের নাগরিক। সীমান্ত এলাকায় হাঁটার বিষয়ে কোনো গ্রহণযোগ্য উত্তর দিতে পারেননি তারা।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) আরেকটি বিজ্ঞিপ্তিতে সীমান্ত পুলিশ জানায়, দুটি আলাদা অভিযানে আরাদ অঞ্চলের নাদলাক-২ এবং বোরস-২ সীমান্ত থেকে ৩৮ জন অভিবাসীকে শনাক্ত করা করেছে স্থানীয় সীমান্তরক্ষীরা।

এতে বলা হয়, মঙ্গলবার ভোররাত তিনটায় নাদলাক-২ বর্ডার পয়েন্টে একজন তুর্কি নাগরিক তুরস্কে নিবন্ধিত একটি গাড়ি নিয়ে সীমান্ত আসেন। তিনি তুরস্ক-নরওয়ে রুটে গ্যালভানাইজড স্টিলের পণ্য পরিবহনের কথা জানান। কিন্তু গাড়িটি চেক করার পর কার্গোর ভেতর থেকে ১৪ জন ব্যক্তিকে বের করে আনে পুলিশ ও শুল্ক কর্মকর্তারা। নথি চেক করার পর গাড়ির ভেতরে থাকা সবাই বাংলাদেশি নাগরিক বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। তাদের বয়স ২০ থেকে ৪১ বছরের মধ্যে।

দ্বিতীয় অভিযানটি পরিচালিত হয় বোরস-২ বর্ডার ক্রসিং পয়েন্টে৷ সেখানে আসা একটি গাড়িকে সন্দেহ হলে যাচাই করার সিদ্ধান্ত নেয় সীমান্ত কর্তৃপক্ষ। একজন লিথুয়ানিয়ান নাগরিক লরিটি চালাচ্ছিলেন। সীমান্তরক্ষীরা এক পর্যায়ে কার্গো বগিতে লুকিয়ে রাখা ২১ জন বিদেশি নাগরিককে খুঁজে পান। প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার সময় পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে, তাদের সবাই বাংলাদেশি নাগরিক।

আরেকটি অভিযান পরিচালিত হয় দেশটির মাইকেল ভ্যালিতে। ওই সময় স্থানীয় সীমান্তরক্ষীরা সীমান্ত থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে ৩ জনকে হেঁটে যেতে দেখার পর জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এক পর্যায়ে ওই ব্যক্তিরা বলেন তারা ভারত ও পাকিস্তানের নাগরিক।

সূত্র: ইনফোমাইগ্রেন্টস

দৌলতপুরে প্রান্তিক কৃষকের মাঝে প্রণোদনার বীজ ও সার বিতরন

হাঙ্গেরিতে অনুপ্রবেশের সময় ৪৩ বাংলাদেশি আটক

আপডেট সময় ০২:৪৮:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০২৩

রোমানিয়া থেকে হাঙ্গেরিতে অনুপ্রবেশের সময় ৪৩ জন বাংলাদেশিসহ ৬০ জন অভিবাসী আটক হয়েছেন। ৪৩ জন বাংলাদেশি নাগরিক ছাড়া আটক বাকি ১৭ জন ভারত, পাকিস্তান ও নেপালের নাগরিক। আলাদা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে রোমানিয়া সীমান্ত পুলিশ।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) প্রথম বিজ্ঞপ্তিতে দেশটির সীমান্ত পুলিশ জানায়, সেদিন ভোরে ভারসান্ড বর্ডার পয়েন্ট কর্মরত সীমান্তরক্ষীরা ২২ জন বিদেশি নাগরিককে শনাক্ত করেছেন। তারা অনিয়মিত পথে হাঙ্গেরি সীমান্ত পার হওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

২২ অভিবাসীর মধ্যে ৮ জনের একটি দলকে এক রোমানিয়ান নাগরিকের গাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জানা গেছে, ৮ অভিবাসীর সবার বয়স ২১ থেকে ৩৬ বছর। তারা সবাই বাংলাদেশি নাগরিক। তাদের সবাই কাজের অনুমতি নিয়ে নিয়মিত পথে রোমানিয়ায় এসেছেন।

একই দিন টার্নু বর্ডার পুলিশ সেক্টরের কর্মকর্তারা সীমান্ত থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে একটি অভিযান চালায়। এ সময় কয়েকজনকে লোককে হাঙ্গেরির দিকে হেঁটে যেতে দেখলে বাধা দেয় পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে, সংশ্লিষ্ট ১৪ জন বিভিন্ন দেশ থেকে আসা অভিবাসী। তারা পাকিস্তান এবং নেপালের নাগরিক। সীমান্ত এলাকায় হাঁটার বিষয়ে কোনো গ্রহণযোগ্য উত্তর দিতে পারেননি তারা।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) আরেকটি বিজ্ঞিপ্তিতে সীমান্ত পুলিশ জানায়, দুটি আলাদা অভিযানে আরাদ অঞ্চলের নাদলাক-২ এবং বোরস-২ সীমান্ত থেকে ৩৮ জন অভিবাসীকে শনাক্ত করা করেছে স্থানীয় সীমান্তরক্ষীরা।

এতে বলা হয়, মঙ্গলবার ভোররাত তিনটায় নাদলাক-২ বর্ডার পয়েন্টে একজন তুর্কি নাগরিক তুরস্কে নিবন্ধিত একটি গাড়ি নিয়ে সীমান্ত আসেন। তিনি তুরস্ক-নরওয়ে রুটে গ্যালভানাইজড স্টিলের পণ্য পরিবহনের কথা জানান। কিন্তু গাড়িটি চেক করার পর কার্গোর ভেতর থেকে ১৪ জন ব্যক্তিকে বের করে আনে পুলিশ ও শুল্ক কর্মকর্তারা। নথি চেক করার পর গাড়ির ভেতরে থাকা সবাই বাংলাদেশি নাগরিক বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। তাদের বয়স ২০ থেকে ৪১ বছরের মধ্যে।

দ্বিতীয় অভিযানটি পরিচালিত হয় বোরস-২ বর্ডার ক্রসিং পয়েন্টে৷ সেখানে আসা একটি গাড়িকে সন্দেহ হলে যাচাই করার সিদ্ধান্ত নেয় সীমান্ত কর্তৃপক্ষ। একজন লিথুয়ানিয়ান নাগরিক লরিটি চালাচ্ছিলেন। সীমান্তরক্ষীরা এক পর্যায়ে কার্গো বগিতে লুকিয়ে রাখা ২১ জন বিদেশি নাগরিককে খুঁজে পান। প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার সময় পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে, তাদের সবাই বাংলাদেশি নাগরিক।

আরেকটি অভিযান পরিচালিত হয় দেশটির মাইকেল ভ্যালিতে। ওই সময় স্থানীয় সীমান্তরক্ষীরা সীমান্ত থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে ৩ জনকে হেঁটে যেতে দেখার পর জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এক পর্যায়ে ওই ব্যক্তিরা বলেন তারা ভারত ও পাকিস্তানের নাগরিক।

সূত্র: ইনফোমাইগ্রেন্টস