ঢাকা ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
টপ নিউজ :
কুষ্টিয়ায় পুুকুরে ডুবে তিন শিশুর মৃত্যু মরদেহ ফেরত পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবী পরিবারের চল্লিশ উর্ধ বয়সী স্কাউটারদের পায়ে হেঁটে ৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণে যাত্রা বেইলি রোডে আগুনে প্রাণ গেল ২ সাংবাদিকের কাচ্চি ভাই নয়, নিচের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত: র‌্যাব বেইলি রোডে আগুন: মৃতের সংখ্যা বাড়ার কারণ জানালেন চিকিৎসক ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রামের নির্মাণাধীন হিমাগারের আগুন বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাষ্ট্রপতির শোক বেইলি রোডের আগুন লাগা বহুতল ভবনটিতে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না: প্রধানমন্ত্রী ভবনে ভেন্টিলেশন ছিল না, নিহতরা ধোঁয়ায় মারা গেছেন

খাওয়া শেষে মিষ্টির অভ্যাস ভালো, না ক্ষতিকর?

খাবারের সাথে সামগ্রিক সুস্থতা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। আমরা যা খাই তার ভিত্তিতেই শরীর পুষ্টি উপাদান পায়। খাবারের ব্যাপারে সচেতন না হলে, নানারকম রোগের বাসা বাঁধার সম্ভাবনা থাকে। অনেকেরই শেষপাতে সামান্য মিষ্টি জাতীয় কিছু খাওয়ার অভ্যাস থাকে। তবে এই অভ্যাসের ফলাফল কি হতে পারে কখনো ভেবে দেখেছেন?

বিশেষ করে রাতের খাবারের পর মিষ্টি খেলে অসুখের পাল্লা ভারী হতে থাকে। ভারতের ডায়েটিশিয়ান ভক্তি সামন্ত জানিয়েছেন, প্রতিদিন মিষ্টি খাওয়ার অভ্যাসের বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তিনি আরও বলেন, মোটাবোলিজমের উপর প্রতিদিন মিষ্টি খাওয়ার বাজে প্রভাব পড়ে। ঘুমের ক্ষেত্রেও নানারকম সমস্যা হয়। যেমন, বেশিক্ষণ ঘুমাতে না পারা অথবা ঘুম গভীর না হওয়া। এসব সহ বিভিন্ন দীর্ঘকালীন প্রতিক্রিয়াও দেখা যেতে পারে। ডা. সামন্ত আরও যেসব ক্ষতির সম্ভাবনার কথা বলেছেন তা জেনে নিন-

*অতিরিক্ত চিনিজাতীয় খাবার খেলে ওজন বাড়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়া শরীরে ইনসুলিনের মাত্রা ওঠা-নামা করে। তাছাড়া ডায়বেটিস ও হৃদরোগের সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

*প্রতিদিন বেশি মাত্রায় মিষ্টি খেলে শরীরে বিভিন্ন প্রদাহের সূত্রপাত হতে পারে। বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এছাড়াও কম সময়ে বার্ধক্যের সম্ভাবনা বাড়তে থাকে। এই অভ্যাসের কারণে হরমোনের ভারসাম্যে প্রভাব পড়ে। বিপাক মন্থর গতিতে হয়। এছাড়াও, ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

* অসচেতন খাদ্যাভ্যাসের কারণে নিউট্রিশনের ঘাটতি দেখা দিতে পারে। সময়ের সাথে সাথে, এই সমস্যা বাড়তে থাকে। ফলে ডায়াবেটিস, হৃদরোগ ও বিপাক সম্পর্কিত রোগের ঝুঁকিও বাড়তে থাকে।

দৌলতপুরে প্রান্তিক কৃষকের মাঝে প্রণোদনার বীজ ও সার বিতরন

খাওয়া শেষে মিষ্টির অভ্যাস ভালো, না ক্ষতিকর?

আপডেট সময় ০৭:০৯:২৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩

খাবারের সাথে সামগ্রিক সুস্থতা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। আমরা যা খাই তার ভিত্তিতেই শরীর পুষ্টি উপাদান পায়। খাবারের ব্যাপারে সচেতন না হলে, নানারকম রোগের বাসা বাঁধার সম্ভাবনা থাকে। অনেকেরই শেষপাতে সামান্য মিষ্টি জাতীয় কিছু খাওয়ার অভ্যাস থাকে। তবে এই অভ্যাসের ফলাফল কি হতে পারে কখনো ভেবে দেখেছেন?

বিশেষ করে রাতের খাবারের পর মিষ্টি খেলে অসুখের পাল্লা ভারী হতে থাকে। ভারতের ডায়েটিশিয়ান ভক্তি সামন্ত জানিয়েছেন, প্রতিদিন মিষ্টি খাওয়ার অভ্যাসের বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তিনি আরও বলেন, মোটাবোলিজমের উপর প্রতিদিন মিষ্টি খাওয়ার বাজে প্রভাব পড়ে। ঘুমের ক্ষেত্রেও নানারকম সমস্যা হয়। যেমন, বেশিক্ষণ ঘুমাতে না পারা অথবা ঘুম গভীর না হওয়া। এসব সহ বিভিন্ন দীর্ঘকালীন প্রতিক্রিয়াও দেখা যেতে পারে। ডা. সামন্ত আরও যেসব ক্ষতির সম্ভাবনার কথা বলেছেন তা জেনে নিন-

*অতিরিক্ত চিনিজাতীয় খাবার খেলে ওজন বাড়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়া শরীরে ইনসুলিনের মাত্রা ওঠা-নামা করে। তাছাড়া ডায়বেটিস ও হৃদরোগের সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

*প্রতিদিন বেশি মাত্রায় মিষ্টি খেলে শরীরে বিভিন্ন প্রদাহের সূত্রপাত হতে পারে। বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এছাড়াও কম সময়ে বার্ধক্যের সম্ভাবনা বাড়তে থাকে। এই অভ্যাসের কারণে হরমোনের ভারসাম্যে প্রভাব পড়ে। বিপাক মন্থর গতিতে হয়। এছাড়াও, ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

* অসচেতন খাদ্যাভ্যাসের কারণে নিউট্রিশনের ঘাটতি দেখা দিতে পারে। সময়ের সাথে সাথে, এই সমস্যা বাড়তে থাকে। ফলে ডায়াবেটিস, হৃদরোগ ও বিপাক সম্পর্কিত রোগের ঝুঁকিও বাড়তে থাকে।