ঢাকা ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
টপ নিউজ :
কুষ্টিয়ায় পুুকুরে ডুবে তিন শিশুর মৃত্যু মরদেহ ফেরত পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবী পরিবারের চল্লিশ উর্ধ বয়সী স্কাউটারদের পায়ে হেঁটে ৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণে যাত্রা বেইলি রোডে আগুনে প্রাণ গেল ২ সাংবাদিকের কাচ্চি ভাই নয়, নিচের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত: র‌্যাব বেইলি রোডে আগুন: মৃতের সংখ্যা বাড়ার কারণ জানালেন চিকিৎসক ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রামের নির্মাণাধীন হিমাগারের আগুন বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাষ্ট্রপতির শোক বেইলি রোডের আগুন লাগা বহুতল ভবনটিতে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না: প্রধানমন্ত্রী ভবনে ভেন্টিলেশন ছিল না, নিহতরা ধোঁয়ায় মারা গেছেন

ওষুধ না খেয়েই গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তির উপায়

গ্যাস্ট্রিক কিংবা অ্যাসিডিটির সমস্যা এখন ছোট বড় সবারই। যা কিছু খাওয়া হচ্ছে তাতেই যেন গ্যাস্ট্রিকের হামলা পিছু ছাড়ছে না। মুঠো মুঠো ওষুধ খেয়েও মুক্তি নেই নাছোড়বান্দা ওসুখ থেকে। তাই ওষুধ না খেয়েই কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে দেখতে পারেন। আপনাকে বিদায় বলতে পারে এই পেছনে লেগে থাকা জটিল রোগ।

খাওয়া-দাওয়ায় অনিয়ম, স্বাস্থ্যকর খাবার না খাওয়া, শারীরিক পরিশ্রম না করা, পানি কম খাওয়ার ফলে পেটে গ্যাস তৈরি হতে পারে। প্রথম দিকেই সচেতন না হলে পরবর্তী সময়ে আলসার হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। জেনে নিন কিছু ঘরোয়া কৌশল-

১. পুদিনা পাতা: পুদিনা পাতায় রয়েছে গ্যাস্ট্রিক ভালো করার উপাদান। তাই অ্যাসিডিটির লক্ষণ দেখা দিলে কয়েকটি পুদিনা পাতা মুখে নিয়ে চিবিয়ে খেয়ে ফেলতে পারেন বা এক কাপ পানিতে ৪-৫ টি পুদিনা পাতা দিয়ে ফুটিয়ে খেতে পারেন বা চাইলে তাতে একটু মধুও যোগ করতে পারেন।

২. গরম পানি: সাধারণত গরম পানি রাতে ঘুমানোর আগে এবং সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে খেলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৩. আদা: আদার রস পাকস্থলীর অ্যাসিডকে কমাতে সাহায্য করে। অ্যাসিডিটির সময় এক টুকরো আদা মুখে রাখলে বা এক কাপ পানিতে কয়েক টুকরো আদা দিয়ে কিছু ক্ষণ ফুটিয়ে রেখে খেতে পারেন কিংবা শুধু এক চা চামচ করে আদার রস দিনে ২-৩ বার খেলে অ্যাসিডিটির থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

৪. জিরা: পাকস্থলীর অ্যাসিড কমিয়ে পেটের ব্যাথা দূর করতে সহায়তা করে জিরা। হজমেও খুব ভালো কাজ করে এটি। এক কাপ পানিতে এক চা চামচ জিরা ও মৌরী গুঁড়া মিশিয়ে খালি পেটে খেতে পারেন অথবা এক গ্লাস পানিতে সামান্য জিরা গুঁড়া মিশিয়ে বা ফুটিয়ে ছেঁকে নিয়ে প্রতিবেলা খাওয়ার পর খেতে পারেন। এতে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমিয়ে শরীর ঝরঝরে থাকবে।

৫. লবঙ্গ: লবঙ্গ পাকস্থলীর অ্যাসিডিটি ও গ্যাস দূর করতে পারে। ২-৩ টি লবঙ্গ মুখে নিয়ে রাখলে বা সমপরিমান এলাচ ও লবঙ্গ গুঁড়া হালকা গরম মিশিয়ে খেলেও উপকার মিলবে।

৬. লেবুর রস: সকালে হালকা গরম পানির সঙ্গে এক টুকরো লেবুর রস মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়। এতে ওজনও কমে যায়।

৭. শরীরচর্চা: সুস্থ থাকতে শরীরচর্চার কোনো বিকল্প নেই। নিয়ম করে এই অভ্যাস করলে অনেক রোগবালাই থেকে দূরে থাকা যায়। হজমের সমস্যাও কমে।

দৌলতপুরে প্রান্তিক কৃষকের মাঝে প্রণোদনার বীজ ও সার বিতরন

ওষুধ না খেয়েই গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তির উপায়

আপডেট সময় ০৭:০৪:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩

গ্যাস্ট্রিক কিংবা অ্যাসিডিটির সমস্যা এখন ছোট বড় সবারই। যা কিছু খাওয়া হচ্ছে তাতেই যেন গ্যাস্ট্রিকের হামলা পিছু ছাড়ছে না। মুঠো মুঠো ওষুধ খেয়েও মুক্তি নেই নাছোড়বান্দা ওসুখ থেকে। তাই ওষুধ না খেয়েই কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে দেখতে পারেন। আপনাকে বিদায় বলতে পারে এই পেছনে লেগে থাকা জটিল রোগ।

খাওয়া-দাওয়ায় অনিয়ম, স্বাস্থ্যকর খাবার না খাওয়া, শারীরিক পরিশ্রম না করা, পানি কম খাওয়ার ফলে পেটে গ্যাস তৈরি হতে পারে। প্রথম দিকেই সচেতন না হলে পরবর্তী সময়ে আলসার হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। জেনে নিন কিছু ঘরোয়া কৌশল-

১. পুদিনা পাতা: পুদিনা পাতায় রয়েছে গ্যাস্ট্রিক ভালো করার উপাদান। তাই অ্যাসিডিটির লক্ষণ দেখা দিলে কয়েকটি পুদিনা পাতা মুখে নিয়ে চিবিয়ে খেয়ে ফেলতে পারেন বা এক কাপ পানিতে ৪-৫ টি পুদিনা পাতা দিয়ে ফুটিয়ে খেতে পারেন বা চাইলে তাতে একটু মধুও যোগ করতে পারেন।

২. গরম পানি: সাধারণত গরম পানি রাতে ঘুমানোর আগে এবং সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে খেলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৩. আদা: আদার রস পাকস্থলীর অ্যাসিডকে কমাতে সাহায্য করে। অ্যাসিডিটির সময় এক টুকরো আদা মুখে রাখলে বা এক কাপ পানিতে কয়েক টুকরো আদা দিয়ে কিছু ক্ষণ ফুটিয়ে রেখে খেতে পারেন কিংবা শুধু এক চা চামচ করে আদার রস দিনে ২-৩ বার খেলে অ্যাসিডিটির থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

৪. জিরা: পাকস্থলীর অ্যাসিড কমিয়ে পেটের ব্যাথা দূর করতে সহায়তা করে জিরা। হজমেও খুব ভালো কাজ করে এটি। এক কাপ পানিতে এক চা চামচ জিরা ও মৌরী গুঁড়া মিশিয়ে খালি পেটে খেতে পারেন অথবা এক গ্লাস পানিতে সামান্য জিরা গুঁড়া মিশিয়ে বা ফুটিয়ে ছেঁকে নিয়ে প্রতিবেলা খাওয়ার পর খেতে পারেন। এতে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা কমিয়ে শরীর ঝরঝরে থাকবে।

৫. লবঙ্গ: লবঙ্গ পাকস্থলীর অ্যাসিডিটি ও গ্যাস দূর করতে পারে। ২-৩ টি লবঙ্গ মুখে নিয়ে রাখলে বা সমপরিমান এলাচ ও লবঙ্গ গুঁড়া হালকা গরম মিশিয়ে খেলেও উপকার মিলবে।

৬. লেবুর রস: সকালে হালকা গরম পানির সঙ্গে এক টুকরো লেবুর রস মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়। এতে ওজনও কমে যায়।

৭. শরীরচর্চা: সুস্থ থাকতে শরীরচর্চার কোনো বিকল্প নেই। নিয়ম করে এই অভ্যাস করলে অনেক রোগবালাই থেকে দূরে থাকা যায়। হজমের সমস্যাও কমে।