ঢাকা ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিখোঁজের দু’দিন পর যুবকের ৮ টুকরো মৃতদেহ উদ্ধার, আটক ৫

কুষ্টিয়ায় মিলন হোসেন (২৭) নামে এক যুবকের ৮ টুকরো মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

৩ ফেব্রুয়ারি, শনিবার সকালে সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর এলাকার পদ্মা নদীর চর থেকে তার খণ্ডিত এ মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ কুষ্টিয়ার কিশোর গ্যাং নেতা এসকে সজিবসহ জনকে আটক করেছে।

নিহত মিলন কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের পূর্ব বাহিরমাদি গ্রামের মওলা বক্সের ছেলে। তিনি কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং এলাকায় পরিবার নিয়ে একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

পুলিশ জানায়, দু’দিন আগে নিখোঁজ হন মিলন হোসেন। পরে তার স্ত্রী কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ একটি মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে প্রথমে ৩জনকে আটক করে। পরে তারা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে মিলনকে হত্যা করে হরিপুর এলাকায় পদ্মা নদীর চরে পুঁতে রাখার কথা স্বীকার করে। এ ঘটনায় পুলিশ আরও ২জনকে আটকের পর শুক্রবার (ফেব্রুয়ারি) গভীর রাতে তাদের নিয়ে পদ্মা নদীর চরে মৃতদেহ উদ্ধারে যায়। ঘন কুয়াশার কারণে রাতে উদ্ধার সম্ভাব না হলেও আজ শনিবার সকালে মিলনের ৮ টুকরো মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। চাঁদা আদায়ের জন্য অপহরণের পর এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করছে পুলিশ।

শাটডাউন কর্মসূচিতে বিএনপির সমর্থন

নিখোঁজের দু’দিন পর যুবকের ৮ টুকরো মৃতদেহ উদ্ধার, আটক ৫

আপডেট সময় ০৪:১৫:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

কুষ্টিয়ায় মিলন হোসেন (২৭) নামে এক যুবকের ৮ টুকরো মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

৩ ফেব্রুয়ারি, শনিবার সকালে সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর এলাকার পদ্মা নদীর চর থেকে তার খণ্ডিত এ মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ কুষ্টিয়ার কিশোর গ্যাং নেতা এসকে সজিবসহ জনকে আটক করেছে।

নিহত মিলন কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ফিলিপনগর ইউনিয়নের পূর্ব বাহিরমাদি গ্রামের মওলা বক্সের ছেলে। তিনি কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং এলাকায় পরিবার নিয়ে একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

পুলিশ জানায়, দু’দিন আগে নিখোঁজ হন মিলন হোসেন। পরে তার স্ত্রী কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ একটি মোবাইল নম্বরের সূত্র ধরে প্রথমে ৩জনকে আটক করে। পরে তারা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে মিলনকে হত্যা করে হরিপুর এলাকায় পদ্মা নদীর চরে পুঁতে রাখার কথা স্বীকার করে। এ ঘটনায় পুলিশ আরও ২জনকে আটকের পর শুক্রবার (ফেব্রুয়ারি) গভীর রাতে তাদের নিয়ে পদ্মা নদীর চরে মৃতদেহ উদ্ধারে যায়। ঘন কুয়াশার কারণে রাতে উদ্ধার সম্ভাব না হলেও আজ শনিবার সকালে মিলনের ৮ টুকরো মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। চাঁদা আদায়ের জন্য অপহরণের পর এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করছে পুলিশ।