ঢাকা ০২:৫৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারায়ণগঞ্জে শ্রমিক বিক্ষোভ, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ১১:৪৬:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪
  • 3

নারায়ণগঞ্জে বন্দরে বেতন বোনাস ও ওভারটাইম দ্রুত পরিশোধের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবরোধ করে বিক্ষোভ কর্মসূচি করেছে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এ সময় তিন ঘণ্টা মহাসড়কের ১০ কিলোমিটার এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

সোমবার (১০ মে) সন্ধ্যায় মহাসড়কের মদনপুর এলাকায় এই বিক্ষোভ কর্মসূচি করে লারিজ ফ্যাশন লিমিটেডের কয়েক হাজার শ্রমিক কর্মচারীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, শ্রমিকদের বিক্ষোভ কর্মসূচিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েন এ সড়ক দিয়ে চলাচল করা যাত্রীরা। খবর পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরে বকেয়া বোনাস ও ওভারটাইম মঙ্গলবার (১১ জুন) পরিশোধ করা হবে বলে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে লিখিত নোটিশ দেওয়া হলে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার পর শ্রমিকরা তাদের অবরোধ তুলে নিলে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

বিক্ষোভকারী শ্রমিকরা জানান, গত ৬ মাস ধরে তাদের বেতন আটকে আছে। তারা বারবার দেবে বলে জানালেও এখনো তা দেয়নি। বেতন না পাওয়ার কারণে আমরা বাড়ি ভাড়া দিতে পারছি না, পরিবার নিয়ে অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। তাই আমাদের দাবি, আসন্ন ঈদের আগেই যেন আমাদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করা হয়।

লারিজ ফ্যাশনের জিএম তাহিদুল ইসলাম বলেন, শ্রমিকরা বিভিন্ন দাবি নিয়ে বিক্ষোভ করেছে। তাদের দাবির বিষয় মাথায় রেখে আমরা আগামীকালের মধ্যে শ্রমিক সব পাওনা পরিশোধ করা হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।

এ ব্যাপারে শিমরাইল হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এ কে এম শরফুদ্দীন বলেন, মদনপুর এলাকায় গার্মেন্টস শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করেছে। এর ফলে মহাসড়কে প্রায় ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি জেলা পুলিশ ও শিল্পাঞ্চল পুলিশ কাজ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

বন্দর থানার ওসি গোলাম মোস্তফা বলেন, বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে মঙ্গলবারের মধ্যে বেতন বোনাস পরিশোধের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

নারায়ণগঞ্জে শ্রমিক বিক্ষোভ, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট

আপডেট সময় ১১:৪৬:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১০ জুন ২০২৪

নারায়ণগঞ্জে বন্দরে বেতন বোনাস ও ওভারটাইম দ্রুত পরিশোধের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অবরোধ করে বিক্ষোভ কর্মসূচি করেছে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এ সময় তিন ঘণ্টা মহাসড়কের ১০ কিলোমিটার এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

সোমবার (১০ মে) সন্ধ্যায় মহাসড়কের মদনপুর এলাকায় এই বিক্ষোভ কর্মসূচি করে লারিজ ফ্যাশন লিমিটেডের কয়েক হাজার শ্রমিক কর্মচারীরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, শ্রমিকদের বিক্ষোভ কর্মসূচিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েন এ সড়ক দিয়ে চলাচল করা যাত্রীরা। খবর পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরে বকেয়া বোনাস ও ওভারটাইম মঙ্গলবার (১১ জুন) পরিশোধ করা হবে বলে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে লিখিত নোটিশ দেওয়া হলে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার পর শ্রমিকরা তাদের অবরোধ তুলে নিলে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

বিক্ষোভকারী শ্রমিকরা জানান, গত ৬ মাস ধরে তাদের বেতন আটকে আছে। তারা বারবার দেবে বলে জানালেও এখনো তা দেয়নি। বেতন না পাওয়ার কারণে আমরা বাড়ি ভাড়া দিতে পারছি না, পরিবার নিয়ে অনেক কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। তাই আমাদের দাবি, আসন্ন ঈদের আগেই যেন আমাদের বকেয়া বেতন পরিশোধ করা হয়।

লারিজ ফ্যাশনের জিএম তাহিদুল ইসলাম বলেন, শ্রমিকরা বিভিন্ন দাবি নিয়ে বিক্ষোভ করেছে। তাদের দাবির বিষয় মাথায় রেখে আমরা আগামীকালের মধ্যে শ্রমিক সব পাওনা পরিশোধ করা হবে বলে আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।

এ ব্যাপারে শিমরাইল হাইওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এ কে এম শরফুদ্দীন বলেন, মদনপুর এলাকায় গার্মেন্টস শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করেছে। এর ফলে মহাসড়কে প্রায় ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি জেলা পুলিশ ও শিল্পাঞ্চল পুলিশ কাজ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

বন্দর থানার ওসি গোলাম মোস্তফা বলেন, বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে মঙ্গলবারের মধ্যে বেতন বোনাস পরিশোধের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।