ঢাকা ০৯:২৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আল শিফা হাসপাতালে ফের গণকবরের সন্ধান

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ১১:১৮:৫৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪
  • 5

ইসরায়েলি হামলায় বিধ্বস্ত গাজার আল-শিফা হাসপাতাল। ছবি: আনাদোলু এজেন্সি
গাজার আল শিফা হাসপাতালে আরও একটি গণকবরের সন্ধান মিলেছে। এ নিয়ে সেখানে তিনটি গণকবর পাওয়া গেল।

গাজার সরকারি মিডিয়া অফিসের বরাতে বুধবার (৮ মে) আনাদোলু এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়, তৃতীয় গণকবরে এখন পর্যন্ত ৪৯টি লাশ পাওয়া গেছে। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। কারণ, উদ্ধারকর্মীদের কাজ এখনো শেষ হয়নি।

গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলে হামলা চালায়। তেল আবিবের হিসাবে, সেই হামলায় প্রায় এক হাজার ২০০ জন নিহত হয়েছে। হামলার পর থেকেই ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

একপর্যায়ে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষাবাহিনী (আইডিএফ) হাসপাতালটি স্থল অভিযান চালায়। দুই সপ্তাহ ধরে আল শিফা হাসপাতাল প্রাঙ্গণে অভিযান চালানোর পর সেটি ছেড়ে যায় ইসরায়েলি বাহিনী।

কিন্তু চলে যাওয়ার আগে গাজার সবচেয়ে বড় এই হাসপাতালটিকে তারা ধ্বংসস্তূপে পরিণত করে রেখে গেছে।

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) দাবি করেছে, হাসপাতাল প্রাঙ্গণে তারা ‘অনেক সন্ত্রাসীকে হত্যা করেছে’ এবং ‘অসংখ্য অস্ত্র ও গোয়েন্দা নথিপত্র’ পেয়েছে।

আনাদোলু এজেন্সির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ইসরায়েলি বাহিনী চলে যাওয়ার পর হাসপাতালটিতে গণকবরের সন্ধান মিলতে থাকে। বুধবারের গণকবরটি নিয়ে গাজায় চলতি যুদ্ধে সাতটি গণকবর পাওয়া গেল।

হিসাব অনুযায়ী, আল-শিফা হাসপাতালে তিনটি, দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালে তিনটি এবং উত্তর গাজার কামেল আদওয়ান হাসপাতালে একটি গণকবর পাওয়া গেছে। সাতটি গণকবর থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৫২০টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে নতুন করে রাফায় সর্বাত্মক স্থল অভিযান চালানোর পরিকল্পনা করছে ইসরায়েল। এতে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় ঘটবে বলে সতর্ক করছে খোদ যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও এ কাজ থেকে ইসরায়েলকে বিরত থাকতে বলেছে। সতর্ক করেছে যে, হামলা হলে ইসরায়েলে মার্কিন অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে।

ডিপজলের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই চলচ্চিত্র সমিতিতে

আল শিফা হাসপাতালে ফের গণকবরের সন্ধান

আপডেট সময় ১১:১৮:৫৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪

ইসরায়েলি হামলায় বিধ্বস্ত গাজার আল-শিফা হাসপাতাল। ছবি: আনাদোলু এজেন্সি
গাজার আল শিফা হাসপাতালে আরও একটি গণকবরের সন্ধান মিলেছে। এ নিয়ে সেখানে তিনটি গণকবর পাওয়া গেল।

গাজার সরকারি মিডিয়া অফিসের বরাতে বুধবার (৮ মে) আনাদোলু এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়, তৃতীয় গণকবরে এখন পর্যন্ত ৪৯টি লাশ পাওয়া গেছে। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। কারণ, উদ্ধারকর্মীদের কাজ এখনো শেষ হয়নি।

গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলে হামলা চালায়। তেল আবিবের হিসাবে, সেই হামলায় প্রায় এক হাজার ২০০ জন নিহত হয়েছে। হামলার পর থেকেই ইসরায়েল গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

একপর্যায়ে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষাবাহিনী (আইডিএফ) হাসপাতালটি স্থল অভিযান চালায়। দুই সপ্তাহ ধরে আল শিফা হাসপাতাল প্রাঙ্গণে অভিযান চালানোর পর সেটি ছেড়ে যায় ইসরায়েলি বাহিনী।

কিন্তু চলে যাওয়ার আগে গাজার সবচেয়ে বড় এই হাসপাতালটিকে তারা ধ্বংসস্তূপে পরিণত করে রেখে গেছে।

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) দাবি করেছে, হাসপাতাল প্রাঙ্গণে তারা ‘অনেক সন্ত্রাসীকে হত্যা করেছে’ এবং ‘অসংখ্য অস্ত্র ও গোয়েন্দা নথিপত্র’ পেয়েছে।

আনাদোলু এজেন্সির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ইসরায়েলি বাহিনী চলে যাওয়ার পর হাসপাতালটিতে গণকবরের সন্ধান মিলতে থাকে। বুধবারের গণকবরটি নিয়ে গাজায় চলতি যুদ্ধে সাতটি গণকবর পাওয়া গেল।

হিসাব অনুযায়ী, আল-শিফা হাসপাতালে তিনটি, দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালে তিনটি এবং উত্তর গাজার কামেল আদওয়ান হাসপাতালে একটি গণকবর পাওয়া গেছে। সাতটি গণকবর থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৫২০টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে নতুন করে রাফায় সর্বাত্মক স্থল অভিযান চালানোর পরিকল্পনা করছে ইসরায়েল। এতে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় ঘটবে বলে সতর্ক করছে খোদ যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও এ কাজ থেকে ইসরায়েলকে বিরত থাকতে বলেছে। সতর্ক করেছে যে, হামলা হলে ইসরায়েলে মার্কিন অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে।