ঢাকা ০৮:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
টপ নিউজ :
কুষ্টিয়ায় পুুকুরে ডুবে তিন শিশুর মৃত্যু মরদেহ ফেরত পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবী পরিবারের চল্লিশ উর্ধ বয়সী স্কাউটারদের পায়ে হেঁটে ৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণে যাত্রা বেইলি রোডে আগুনে প্রাণ গেল ২ সাংবাদিকের কাচ্চি ভাই নয়, নিচের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত: র‌্যাব বেইলি রোডে আগুন: মৃতের সংখ্যা বাড়ার কারণ জানালেন চিকিৎসক ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রামের নির্মাণাধীন হিমাগারের আগুন বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাষ্ট্রপতির শোক বেইলি রোডের আগুন লাগা বহুতল ভবনটিতে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না: প্রধানমন্ত্রী ভবনে ভেন্টিলেশন ছিল না, নিহতরা ধোঁয়ায় মারা গেছেন

ভোট বর্জনকারীরা দেশ থেকে বিলীন হয়ে গেছে: নানক

যারা ভোট বর্জনের রাজনীতি করেছে তারা দেশ থেকে নিঃশেষ ও বিলীন হয়ে গিয়েছে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ঢাকা-১৩ আসনে নৌকার প্রতীকের প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে বড় রাজনৈতিক দল যারা ছিলেন তাদের মধ্যে যারা ভোট বর্জনের রাজনীতি করেছেন, ভোট প্রতিরোধের রাজনীতি করেছেন তারা দেশে থেকে নিঃশেষ ও বিলীন হয়ে গিয়েছে। আগামী নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করা যাবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

৩১ ডিসেম্বর, রবিবার তৃণমূল নারী উদ্যোক্ত সোসাইটি আয়োজিত রাজধানীর মোহাম্মদপুর সূচনা কমিউনিটি সেন্টারে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নারী উদ্যোক্তা ও দলীয় নারী সংগঠন প্রধানদের সঙ্গে এক আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় নানক এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এ নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশে অনেক দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে। এ নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করার জন্য বিএনপি-জামায়াত অপশক্তি দেশের বিভিন্ন স্থানে গুপ্ত হামলা ও গুপ্ত হত্যা করছে। আমরা পরিস্কারভাবে বলতে চাই, এ অপশক্তিকে বলতে চাই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবেই। এমন নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে একটি উৎসবে পরিণত হবে। এ নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করা যাবে না।

তিনি আরও বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে। আগামী জানুয়ারী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন জাতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ নির্বাচন গণতন্ত্রের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, গণতন্ত্র রক্ষার নির্বাচন। এ নির্বাচন স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার নির্বাচন। এ নির্বাচন অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ব্যবস্থা রক্ষার নির্বাচন। এ নির্বাচন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার নির্বাচন।

বাংলাদেশ এক সময় অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, এ দেশে একজন নারী ভবিষ্যতের স্বপ্নও দেখতে পারতো না। কিন্তু এখন এবার যারা প্রথম ভোটার তারা বাংলাদেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেন। কারণ আমাদের নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন স্বপ্নবাজ মানুষ এবং তিনি স্বপ্নকে সফল করার একজন প্রত্যয়ী নেত্রী, রাষ্ট্রনায়ক।

এসময় তিনি বলেন, আপনারা দেশের স্বাধীনতা রক্ষার্থে- দেশের গণতন্ত্র রক্ষার্থে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিবেন। আসন্ন ৭ই জানুয়ারি সারাদেশে যে ভোট উৎসব শুরু হয়েছে এই উৎসবে অংশ নেবেন আপনারাও।নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চলমান যে ষড়যন্ত্র হচ্ছে, কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিয়ে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক এ সকল ষড়যন্ত্রের জবাব দেবেন আপনারা।

সংগঠনের সভাপতি শাহীন আক্তার সাথীর সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সলিমুল্লাহ সলু, নারী কাউন্সিলর রোকসানা আলমসহ নারী উদ্যোক্তারা।

দৌলতপুরে প্রান্তিক কৃষকের মাঝে প্রণোদনার বীজ ও সার বিতরন

ভোট বর্জনকারীরা দেশ থেকে বিলীন হয়ে গেছে: নানক

আপডেট সময় ১১:৩০:৪৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২৩

যারা ভোট বর্জনের রাজনীতি করেছে তারা দেশ থেকে নিঃশেষ ও বিলীন হয়ে গিয়েছে বলে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ঢাকা-১৩ আসনে নৌকার প্রতীকের প্রার্থী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে বড় রাজনৈতিক দল যারা ছিলেন তাদের মধ্যে যারা ভোট বর্জনের রাজনীতি করেছেন, ভোট প্রতিরোধের রাজনীতি করেছেন তারা দেশে থেকে নিঃশেষ ও বিলীন হয়ে গিয়েছে। আগামী নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করা যাবে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

৩১ ডিসেম্বর, রবিবার তৃণমূল নারী উদ্যোক্ত সোসাইটি আয়োজিত রাজধানীর মোহাম্মদপুর সূচনা কমিউনিটি সেন্টারে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নারী উদ্যোক্তা ও দলীয় নারী সংগঠন প্রধানদের সঙ্গে এক আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় নানক এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এ নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশে অনেক দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে। এ নির্বাচন বাধাগ্রস্ত করার জন্য বিএনপি-জামায়াত অপশক্তি দেশের বিভিন্ন স্থানে গুপ্ত হামলা ও গুপ্ত হত্যা করছে। আমরা পরিস্কারভাবে বলতে চাই, এ অপশক্তিকে বলতে চাই এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবেই। এমন নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে একটি উৎসবে পরিণত হবে। এ নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করা যাবে না।

তিনি আরও বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে। আগামী জানুয়ারী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন জাতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ নির্বাচন গণতন্ত্রের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, গণতন্ত্র রক্ষার নির্বাচন। এ নির্বাচন স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার নির্বাচন। এ নির্বাচন অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ব্যবস্থা রক্ষার নির্বাচন। এ নির্বাচন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার নির্বাচন।

বাংলাদেশ এক সময় অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, এ দেশে একজন নারী ভবিষ্যতের স্বপ্নও দেখতে পারতো না। কিন্তু এখন এবার যারা প্রথম ভোটার তারা বাংলাদেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেন। কারণ আমাদের নেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন স্বপ্নবাজ মানুষ এবং তিনি স্বপ্নকে সফল করার একজন প্রত্যয়ী নেত্রী, রাষ্ট্রনায়ক।

এসময় তিনি বলেন, আপনারা দেশের স্বাধীনতা রক্ষার্থে- দেশের গণতন্ত্র রক্ষার্থে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিবেন। আসন্ন ৭ই জানুয়ারি সারাদেশে যে ভোট উৎসব শুরু হয়েছে এই উৎসবে অংশ নেবেন আপনারাও।নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চলমান যে ষড়যন্ত্র হচ্ছে, কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিয়ে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক এ সকল ষড়যন্ত্রের জবাব দেবেন আপনারা।

সংগঠনের সভাপতি শাহীন আক্তার সাথীর সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য সাহাবুদ্দিন ফরাজী, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সলিমুল্লাহ সলু, নারী কাউন্সিলর রোকসানা আলমসহ নারী উদ্যোক্তারা।