ঢাকা ১২:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুপার এইটে উঠলে শান্তদের খেলতে হবে যাদের বিরুদ্ধে

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ০৩:২০:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪
  • 8

এবারের বিশ্বকাপটি ঠিক সুবিধাজনক অবস্থা থেকে শুরু করেনি বাংলাদেশ দল। তবে লঙ্কানদের পর নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে সুপার এইট একপ্রকার নিশ্চিত করে ফেলেছে বাংলাদেশ। তাই পরের ম্যাচগুলোতে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু না হলে গ্রুপ ‘ডি’ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাকে সঙ্গে নিয়ে সুপার এইটে পা রাখবে সাকিব-শান্তরা। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ এরই মধ্যে ঠিক হয়ে গেছে। বাংলাদেশ খেলবে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে।

অফফর্মে থাকার পরেও টাইগাররা এবার বিশ্বকাপ শুরু করেছিল লঙ্কানদের হারিয়ে। দ্বিতীয় ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের খুব কাছেও চলে গিয়েছিল। তবে ভাগ্য দোষে সেটি হয়নি। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচে অবশ্য জয় হাতছাড়া হতে দেয়নি বাংলাদেশ। তাতে ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সুপার এইটের এক পা দিয়ে রেখেছে নাজমুল শান্তর দল।

এদিকে তিন ম্যাচের প্রতিটিতে জয় তুলে সবার আগে সুপার এইট নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর একে একে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তানও নিশ্চিত করেছে শেষ আট।

গ্রুপ ‘ডি’ থেকে সুপার এইট নিশ্চিত করার দৌড়ে বাংলাদেশ ছাড়াও আছে নেদারল্যান্ডস ও নেপাল। অন্যদিকে ৩ ম্যাচে ২ হারে ইতোমধ্যে আসর থেকে বিদায় নিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

তবে নেদারল্যান্ডস ও নেপালের ভাগ্য অনেক কিছুর ওপর নির্ভর করছে। বাংলাদেশ অবশ্য নিজেদের শেষ ম্যাচে যদি নেপালকে হারায় তাহলে অন্য কিছুর দিকে তাকাতে হবে না। এখন সবকিছু ঠিকভাবে এগোলে দেখে নেয়া যাক বাংলাদেশ প্রতিপক্ষ হিসেবে কাকে পাবে?

সুপার এইটে সুযোগ পাওয়া আট দল খেলবে দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে । গ্রুপ ‘ওয়ান’ এবং গ্রুপ ‘টু’। আইসিসি টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই জানিয়ে দিয়েছিল যাই ঘটুক না কেন, ভারত এ-১, পাকিস্তান এ-২, ইংল্যান্ড বি-১, অস্ট্রেলিয়া বি-২, নিউজিল্যান্ড সি-১, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সি-২ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা ডি-১ এবং শ্রীলঙ্কা ডি-২ হিসেবে সুপার এইটে খেলবে। যদি কোন দল উঠতে ব্যর্থ হয় তাহলে যারা তাদের বাদ দিয়েছে তারা বাদ পড়া দলের স্থান দখল করবে।

তাই এখানে শ্রীলঙ্কা বাদ পড়ায় ডি-২ হিসেবে সুপার এইটে খেলার সম্ভাবনা বাংলাদেশেরই সবচেয়ে বেশি।

পূর্বনির্ধারিত সূচি অনুযায়ী সেক্ষেত্রে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানকে গ্রুপ ওয়ানে পাবে বাংলাদেশ। তিন দলই ইতোমধ্যে সুপার এইট নিশ্চিত করেছে।

এদিকে সুপার এইটের সময়সূচিও নির্ধারিত। সবকিছু ঠিক থাকলে এ পর্বে বাংলাদেশের প্রথম প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। অ্যান্টিগাতে ২১ জুন ভোর সাড়ে ৬টায় হবে এ ম্যাচ। পরের দিন রাত সাড়ে ৮টায় একই ভেন্যুতে ভারতের মোকাবিলা করবে বাংলাদেশ। এরপর ২৫ জুন সাড়ে ৬টায় সেন্ট ভিনসেন্টে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সুপার এইটের শেষ ম্যাচটি খেলবে টাইগাররা।

শাটডাউন কর্মসূচিতে বিএনপির সমর্থন

সুপার এইটে উঠলে শান্তদের খেলতে হবে যাদের বিরুদ্ধে

আপডেট সময় ০৩:২০:১৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪

এবারের বিশ্বকাপটি ঠিক সুবিধাজনক অবস্থা থেকে শুরু করেনি বাংলাদেশ দল। তবে লঙ্কানদের পর নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে সুপার এইট একপ্রকার নিশ্চিত করে ফেলেছে বাংলাদেশ। তাই পরের ম্যাচগুলোতে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু না হলে গ্রুপ ‘ডি’ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাকে সঙ্গে নিয়ে সুপার এইটে পা রাখবে সাকিব-শান্তরা। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ এরই মধ্যে ঠিক হয়ে গেছে। বাংলাদেশ খেলবে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে।

অফফর্মে থাকার পরেও টাইগাররা এবার বিশ্বকাপ শুরু করেছিল লঙ্কানদের হারিয়ে। দ্বিতীয় ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের খুব কাছেও চলে গিয়েছিল। তবে ভাগ্য দোষে সেটি হয়নি। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচে অবশ্য জয় হাতছাড়া হতে দেয়নি বাংলাদেশ। তাতে ৩ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সুপার এইটের এক পা দিয়ে রেখেছে নাজমুল শান্তর দল।

এদিকে তিন ম্যাচের প্রতিটিতে জয় তুলে সবার আগে সুপার এইট নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর একে একে অস্ট্রেলিয়া, ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তানও নিশ্চিত করেছে শেষ আট।

গ্রুপ ‘ডি’ থেকে সুপার এইট নিশ্চিত করার দৌড়ে বাংলাদেশ ছাড়াও আছে নেদারল্যান্ডস ও নেপাল। অন্যদিকে ৩ ম্যাচে ২ হারে ইতোমধ্যে আসর থেকে বিদায় নিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

তবে নেদারল্যান্ডস ও নেপালের ভাগ্য অনেক কিছুর ওপর নির্ভর করছে। বাংলাদেশ অবশ্য নিজেদের শেষ ম্যাচে যদি নেপালকে হারায় তাহলে অন্য কিছুর দিকে তাকাতে হবে না। এখন সবকিছু ঠিকভাবে এগোলে দেখে নেয়া যাক বাংলাদেশ প্রতিপক্ষ হিসেবে কাকে পাবে?

সুপার এইটে সুযোগ পাওয়া আট দল খেলবে দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে । গ্রুপ ‘ওয়ান’ এবং গ্রুপ ‘টু’। আইসিসি টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই জানিয়ে দিয়েছিল যাই ঘটুক না কেন, ভারত এ-১, পাকিস্তান এ-২, ইংল্যান্ড বি-১, অস্ট্রেলিয়া বি-২, নিউজিল্যান্ড সি-১, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সি-২ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা ডি-১ এবং শ্রীলঙ্কা ডি-২ হিসেবে সুপার এইটে খেলবে। যদি কোন দল উঠতে ব্যর্থ হয় তাহলে যারা তাদের বাদ দিয়েছে তারা বাদ পড়া দলের স্থান দখল করবে।

তাই এখানে শ্রীলঙ্কা বাদ পড়ায় ডি-২ হিসেবে সুপার এইটে খেলার সম্ভাবনা বাংলাদেশেরই সবচেয়ে বেশি।

পূর্বনির্ধারিত সূচি অনুযায়ী সেক্ষেত্রে ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও আফগানিস্তানকে গ্রুপ ওয়ানে পাবে বাংলাদেশ। তিন দলই ইতোমধ্যে সুপার এইট নিশ্চিত করেছে।

এদিকে সুপার এইটের সময়সূচিও নির্ধারিত। সবকিছু ঠিক থাকলে এ পর্বে বাংলাদেশের প্রথম প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। অ্যান্টিগাতে ২১ জুন ভোর সাড়ে ৬টায় হবে এ ম্যাচ। পরের দিন রাত সাড়ে ৮টায় একই ভেন্যুতে ভারতের মোকাবিলা করবে বাংলাদেশ। এরপর ২৫ জুন সাড়ে ৬টায় সেন্ট ভিনসেন্টে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সুপার এইটের শেষ ম্যাচটি খেলবে টাইগাররা।