ঢাকা ০৯:০৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৃহস্পতিবার কেন বাজেট পেশ হয়?

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ১২:০৩:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪
  • 7

বরাবরের মতো এবারও অর্থবছরের প্রথম বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে দেশের ৫৩তম জাতীয় বাজেট উপস্থাপন করা হচ্ছে। স্বাধীনতার পর থেকে অর্থাৎ ১৯৭২-৭৩ অর্থবছর থেকেই দেশের সব বাজেট বৃহস্পতিবার পেশ করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার (৬ জুন) জাতীয় সংসদে ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকার বাজেট পেশ করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বিকেলে বসছে জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন। এটি হবে আওয়ামী লীগ সরকারের টানা চতুর্থ মেয়াদের প্রথম বাজেট।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, প্রস্তাবিত বাজেটের আকার হবে ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকা। বাজেটে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা থাকছে ৫ লাখ ৪১ হাজার কোটি টাকা। বাকি ২ লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা থাকবে। ২ লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) ইতোমধ্যে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রতি বছর বাজেট কেন বৃহস্পতিবার পেশ করা হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আব্দুল মজিদ কালবেলাকে বলেছেন, ‘বাজেট দেওয়ার সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের অনেক পরিশ্রম করতে হয়। ফলে বৃহস্পতিবার বাজেট দিয়ে শুক্রবার ও শনিবার দুদিন ছুটি পাওয়া যায়। আবার ছুটির এই দুইদিনে বাজেটটা বিশ্লেষণ করারও একটা সময় পাওয়া যায়।’

তিনি বলেন, এ ছাড়াও আরও কয়েকটা বিষয় থাকতে পারে। যেমন- বৃহস্পতিবার বাজেট ঘোষণা হওয়ার পর যেহেতু দুদিন সব কিছু বন্ধ থাকে এই দুদিন কেউ আইনি কোনো পদক্ষেপও নিতে পারে না। এবং এই দুদিন চাইলেও কেউ জিনিসপত্র কিনে রাখা বা ডিউটি ফাঁকি দেওয়া এ সকল কাজগুলো করা যায় না।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু পরের সপ্তাহে সম্পূরক বাজেট পাশ করতে হয়। তাই বিষয়টি নিয়ে পড়াশুনার বিষয় থাকে। তাই সংসদ সদস্যরা দুদিন যেন বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে পারে তাই বৃহস্পতিবার বাজেট ঘোষণা করা হয় বলেও বলা যায়।

অনেকের মতে, স্বাধীনতার পর থেকেই প্রতিবছর বৃহস্পতিবার বাজেট দেওয়ার একটা রেওয়াজ চলে আসছে। তাই ঐতিহ্যগতভাবে ওই রেওয়াজটা অনুসরণ করে আসছে অর্থমন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার কেন বাজেট পেশ হয়?

আপডেট সময় ১২:০৩:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

বরাবরের মতো এবারও অর্থবছরের প্রথম বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে দেশের ৫৩তম জাতীয় বাজেট উপস্থাপন করা হচ্ছে। স্বাধীনতার পর থেকে অর্থাৎ ১৯৭২-৭৩ অর্থবছর থেকেই দেশের সব বাজেট বৃহস্পতিবার পেশ করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার (৬ জুন) জাতীয় সংসদে ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকার বাজেট পেশ করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বিকেলে বসছে জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন। এটি হবে আওয়ামী লীগ সরকারের টানা চতুর্থ মেয়াদের প্রথম বাজেট।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, প্রস্তাবিত বাজেটের আকার হবে ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকা। বাজেটে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা থাকছে ৫ লাখ ৪১ হাজার কোটি টাকা। বাকি ২ লাখ ৫৬ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা থাকবে। ২ লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) ইতোমধ্যে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রতি বছর বাজেট কেন বৃহস্পতিবার পেশ করা হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আব্দুল মজিদ কালবেলাকে বলেছেন, ‘বাজেট দেওয়ার সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তাদের অনেক পরিশ্রম করতে হয়। ফলে বৃহস্পতিবার বাজেট দিয়ে শুক্রবার ও শনিবার দুদিন ছুটি পাওয়া যায়। আবার ছুটির এই দুইদিনে বাজেটটা বিশ্লেষণ করারও একটা সময় পাওয়া যায়।’

তিনি বলেন, এ ছাড়াও আরও কয়েকটা বিষয় থাকতে পারে। যেমন- বৃহস্পতিবার বাজেট ঘোষণা হওয়ার পর যেহেতু দুদিন সব কিছু বন্ধ থাকে এই দুদিন কেউ আইনি কোনো পদক্ষেপও নিতে পারে না। এবং এই দুদিন চাইলেও কেউ জিনিসপত্র কিনে রাখা বা ডিউটি ফাঁকি দেওয়া এ সকল কাজগুলো করা যায় না।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু পরের সপ্তাহে সম্পূরক বাজেট পাশ করতে হয়। তাই বিষয়টি নিয়ে পড়াশুনার বিষয় থাকে। তাই সংসদ সদস্যরা দুদিন যেন বিষয়টি ভালোভাবে বুঝতে পারে তাই বৃহস্পতিবার বাজেট ঘোষণা করা হয় বলেও বলা যায়।

অনেকের মতে, স্বাধীনতার পর থেকেই প্রতিবছর বৃহস্পতিবার বাজেট দেওয়ার একটা রেওয়াজ চলে আসছে। তাই ঐতিহ্যগতভাবে ওই রেওয়াজটা অনুসরণ করে আসছে অর্থমন্ত্রণালয়।