ঢাকা ০২:৩৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পর্তুগালে বাংলাদেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীদের দুুঃসংবাদ

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ০২:১৪:০৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪
  • 5

শিগগিরই ইউরোপের পর্তুগালে অভিবাসন নীতিমালা পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। যা নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন অভিবাসন প্রত্যাশীরা। ভ্রমণ ভিসায় কিংবা অন্য কোন পদ্ধতিতে পর্তুগালে এসে অভিবাসন সুবিধা নেয়ার পথ বন্ধ হবে এই নীতিমালা কার্যকর হলে।

অভিবাসন ইস্যুতে ৪১টি প্রস্তাব কাউন্সিলর মিনিস্টাররা পাশ করার পর সোমবার (০৩ জুন) রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের জন্য তা পাঠানো হয়। এ বিষয়টি উঠে এসেছে দেশটির প্রভাবশালী গণমাধ্যমে।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী লুইস মন্টিনেগ্রো বলেছেন, পর্তুগালের দরজা বন্ধ হচ্ছে না। তবে যেরকম অরক্ষিত ছিলো এখন আর সেরকম থাকবে না। ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় পর্তুগাল আসা যাবে, তবে থাকতে হবে কাজের কন্ট্রাক্ট ও আবাসনের নিশ্চয়তা। চাকরি বা নিয়োগ দেয়া কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও কড়া নির্দেশনা দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন পর্তুগিজ প্রধানমন্ত্রী।

এতদিন ভ্রমণ ভিসায় কিংবা অন্য কোন ভাবে পর্তুগালে এসে কাজের চুক্তি করলে মিলতো বৈধ হবার সুযোগ। এ কারণে অনুন্নত দেশ থেকে অভিবাসন প্রত্যাশীদের ভীড় পর্তুগালে। বাংলাদেশিরাও ইউরোপের এই দেশটিতে আসছে নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায়।

তবে ইতিমধ্যেই যারা বৈধ হওয়ার জন্য অভিবাসন ও ইমিগ্রেশন সংস্থায়- সেফ এন্টি করে ফেলেছেন তাদের আতংকিত হবার কিছু নেই বলে জানিয়েছেন পর্তুগাল বাংলাদেশ ফেন্ডসশিপ এসোসিয়েশনের সভাপতি রানা তসলিম উদ্দিন। তিনি বলেন, যারা সেফ এন্টি করেছেন তাদের কার্যক্রম পূর্বের নিয়মেই চলমান থাকবে।

পর্তুগালে বাংলাদেশি অভিবাসনপ্রত্যাশীদের দুুঃসংবাদ

আপডেট সময় ০২:১৪:০৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪

শিগগিরই ইউরোপের পর্তুগালে অভিবাসন নীতিমালা পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। যা নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন অভিবাসন প্রত্যাশীরা। ভ্রমণ ভিসায় কিংবা অন্য কোন পদ্ধতিতে পর্তুগালে এসে অভিবাসন সুবিধা নেয়ার পথ বন্ধ হবে এই নীতিমালা কার্যকর হলে।

অভিবাসন ইস্যুতে ৪১টি প্রস্তাব কাউন্সিলর মিনিস্টাররা পাশ করার পর সোমবার (০৩ জুন) রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের জন্য তা পাঠানো হয়। এ বিষয়টি উঠে এসেছে দেশটির প্রভাবশালী গণমাধ্যমে।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী লুইস মন্টিনেগ্রো বলেছেন, পর্তুগালের দরজা বন্ধ হচ্ছে না। তবে যেরকম অরক্ষিত ছিলো এখন আর সেরকম থাকবে না। ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় পর্তুগাল আসা যাবে, তবে থাকতে হবে কাজের কন্ট্রাক্ট ও আবাসনের নিশ্চয়তা। চাকরি বা নিয়োগ দেয়া কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও কড়া নির্দেশনা দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন পর্তুগিজ প্রধানমন্ত্রী।

এতদিন ভ্রমণ ভিসায় কিংবা অন্য কোন ভাবে পর্তুগালে এসে কাজের চুক্তি করলে মিলতো বৈধ হবার সুযোগ। এ কারণে অনুন্নত দেশ থেকে অভিবাসন প্রত্যাশীদের ভীড় পর্তুগালে। বাংলাদেশিরাও ইউরোপের এই দেশটিতে আসছে নাগরিকত্ব পাওয়ার আশায়।

তবে ইতিমধ্যেই যারা বৈধ হওয়ার জন্য অভিবাসন ও ইমিগ্রেশন সংস্থায়- সেফ এন্টি করে ফেলেছেন তাদের আতংকিত হবার কিছু নেই বলে জানিয়েছেন পর্তুগাল বাংলাদেশ ফেন্ডসশিপ এসোসিয়েশনের সভাপতি রানা তসলিম উদ্দিন। তিনি বলেন, যারা সেফ এন্টি করেছেন তাদের কার্যক্রম পূর্বের নিয়মেই চলমান থাকবে।