ঢাকা ০৩:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরবর্তী বিশ্বকাপেও সাকিব!

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ০২:৩৯:৩১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪
  • 4

আর মাত্র একদিন পরেই শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া এই বৈশ্বিক আসরে রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলও। যদিও টাইগারদের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ হতে এখনও সপ্তাহখানেক বাকি। সেই ম্যাচের আগে বাংলাদেশের সমর্থকদের মধ্যে বিশ্বকাপের উত্তেজনা জাগিয়ে তুলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রতিদিনই প্রকাশ করছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সাক্ষাৎকার।

সেই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার (৩১ মে) প্রকাশিত হয়েছে বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের সাক্ষাৎকার। ৩ মিনিটের এই সাক্ষাৎকারে নিজের সাকিব একটু ভিন্নভাবে সাক্ষাৎকারটা দিয়েছেন। বিশ্বকাপ নিয়ে নিজের ভাবনা, অভিজ্ঞতার সাথে জানিয়েছেন পরবর্তী বিশ্বকাপেও বাংলাদেশের জার্সি পড়ে মাঠে নামার ইচ্ছা।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসর থেকেই খেলছেন সাকিব আল হাসান। ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা আর টাইগারদের এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারই একমাত্র ক্রিকেটার যারা ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের সবগুলো বিশ্বকাপে খেলেছেন। তবে সাকিব এখানে থামতে চান না খেলতে চান আরও একটি বিশ্বকাপ।

সাকিব এ সম্পর্কে বলেন, ‘প্রথম বিশ্বকাপ থেকে এ পর্যন্ত সবগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হলো সবগুলোতেই অংশ নিতে পেরেছি। আমার জন্য এটা গর্বের ও আনন্দের। একই সময়ে যেহেতু দেশের প্রতিনিধিত্ব করছি, অনেক ভালো লাগার একটা জায়গা আছে। আমি এবং রোহিত শর্মাই হয়তো মাত্র দুজন খেলোয়াড় যারা সবগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলেছে। আশা করব আরও একটি বিশ্বকাপ যেন খেলতে পারি। তার আগে এই বিশ্বকাপে পারফরম্যান্সটা যেন ভালো থাকে। বাংলাদেশ যেন অন্যান্য যে কোনো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চেয়ে ভালো ফল করে আসতে পারে।’

সমর্থকদের অনেক প্রশ্নের মধ্যে একটি ছিল যুক্তরাষ্ট্রে সাকিবের সেকেন্ড হোম প্রসঙ্গ। এই নিয়ে সাকিব সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার সেকেন্ড হোম ঠিক আছে। তবে হোম অ্যাডভান্টেজ পাবে কি না বলাটা মুশকিল। কিন্তু আমার মনে হয় আমরা পাবো। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং আমেরিকা, এ দুটো জায়গাতেই আমরা যখন খেলেছি বাংলাদেশ ভালো করেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজে আমরা সব সময়ই সুবিধা পাই। কারণ পিচগুলো অনেকটা আমাদের দেশের মতোই হয়ে থাকে। তাই আমি আশা করছি দুই জায়গাতেই আমরা সুবিধাটা নিতে পারবো।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রে দুই জায়গাতেই টিম টাইগার্সের বেশ ভালো সমর্থক রয়েছে। বাংলাদেশের হয়ে গলা ফাটাতে উন্মুখ হয়ে আছেন এই সমর্থকেরা । এই সমর্থকদের সমর্থন বাংলাদেশের ভালো করার অনুপ্রেরণা হতে পারে বলে মনে করেন সাকিব। আর সাকিব নিজের নামের পাশে রেকর্ডের চেয়ে বাংলাদেশের হয়ে অবদান রাখতে চান এটিও জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়াও বর্তমান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা নিয়েও কথা বলেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। জানিয়েছেন অনান্য সংস্করণ থেকে এর পার্থক্যের কথাও। সাকিব এসব বিষয়ের সাথে এই বিশ্বকাপে কেমন প্রতিযোগিতা আশা করেন সেটিও জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় এটা ওয়ানডেরই বর্ধিত সংস্করণ। ওভার কাটলে যেটা হতো সেটাই। অনেক রোমাঞ্চকর। দর্শকেরা অনেক পছন্দ করেন। আমি একটি জিনিসই শুধু মনে করি যে ব্যাট ও বলের যেন সমান প্রতিযোগিতা এখানে থাকে। যেকোনো একতরফা যেন টুর্নামেন্টটা না হয়। সাধারণত বিশ্বকাপে কখনোই সেটা হয় না। আমি মনে করি এবারও একইরকম হবে।’

পরবর্তী বিশ্বকাপেও সাকিব!

আপডেট সময় ০২:৩৯:৩১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪

আর মাত্র একদিন পরেই শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার ম্যাচের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া এই বৈশ্বিক আসরে রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলও। যদিও টাইগারদের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ হতে এখনও সপ্তাহখানেক বাকি। সেই ম্যাচের আগে বাংলাদেশের সমর্থকদের মধ্যে বিশ্বকাপের উত্তেজনা জাগিয়ে তুলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রতিদিনই প্রকাশ করছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সাক্ষাৎকার।

সেই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার (৩১ মে) প্রকাশিত হয়েছে বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের সাক্ষাৎকার। ৩ মিনিটের এই সাক্ষাৎকারে নিজের সাকিব একটু ভিন্নভাবে সাক্ষাৎকারটা দিয়েছেন। বিশ্বকাপ নিয়ে নিজের ভাবনা, অভিজ্ঞতার সাথে জানিয়েছেন পরবর্তী বিশ্বকাপেও বাংলাদেশের জার্সি পড়ে মাঠে নামার ইচ্ছা।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসর থেকেই খেলছেন সাকিব আল হাসান। ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা আর টাইগারদের এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারই একমাত্র ক্রিকেটার যারা ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের সবগুলো বিশ্বকাপে খেলেছেন। তবে সাকিব এখানে থামতে চান না খেলতে চান আরও একটি বিশ্বকাপ।

সাকিব এ সম্পর্কে বলেন, ‘প্রথম বিশ্বকাপ থেকে এ পর্যন্ত সবগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হলো সবগুলোতেই অংশ নিতে পেরেছি। আমার জন্য এটা গর্বের ও আনন্দের। একই সময়ে যেহেতু দেশের প্রতিনিধিত্ব করছি, অনেক ভালো লাগার একটা জায়গা আছে। আমি এবং রোহিত শর্মাই হয়তো মাত্র দুজন খেলোয়াড় যারা সবগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলেছে। আশা করব আরও একটি বিশ্বকাপ যেন খেলতে পারি। তার আগে এই বিশ্বকাপে পারফরম্যান্সটা যেন ভালো থাকে। বাংলাদেশ যেন অন্যান্য যে কোনো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চেয়ে ভালো ফল করে আসতে পারে।’

সমর্থকদের অনেক প্রশ্নের মধ্যে একটি ছিল যুক্তরাষ্ট্রে সাকিবের সেকেন্ড হোম প্রসঙ্গ। এই নিয়ে সাকিব সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার সেকেন্ড হোম ঠিক আছে। তবে হোম অ্যাডভান্টেজ পাবে কি না বলাটা মুশকিল। কিন্তু আমার মনে হয় আমরা পাবো। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং আমেরিকা, এ দুটো জায়গাতেই আমরা যখন খেলেছি বাংলাদেশ ভালো করেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজে আমরা সব সময়ই সুবিধা পাই। কারণ পিচগুলো অনেকটা আমাদের দেশের মতোই হয়ে থাকে। তাই আমি আশা করছি দুই জায়গাতেই আমরা সুবিধাটা নিতে পারবো।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রে দুই জায়গাতেই টিম টাইগার্সের বেশ ভালো সমর্থক রয়েছে। বাংলাদেশের হয়ে গলা ফাটাতে উন্মুখ হয়ে আছেন এই সমর্থকেরা । এই সমর্থকদের সমর্থন বাংলাদেশের ভালো করার অনুপ্রেরণা হতে পারে বলে মনে করেন সাকিব। আর সাকিব নিজের নামের পাশে রেকর্ডের চেয়ে বাংলাদেশের হয়ে অবদান রাখতে চান এটিও জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়াও বর্তমান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা নিয়েও কথা বলেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। জানিয়েছেন অনান্য সংস্করণ থেকে এর পার্থক্যের কথাও। সাকিব এসব বিষয়ের সাথে এই বিশ্বকাপে কেমন প্রতিযোগিতা আশা করেন সেটিও জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় এটা ওয়ানডেরই বর্ধিত সংস্করণ। ওভার কাটলে যেটা হতো সেটাই। অনেক রোমাঞ্চকর। দর্শকেরা অনেক পছন্দ করেন। আমি একটি জিনিসই শুধু মনে করি যে ব্যাট ও বলের যেন সমান প্রতিযোগিতা এখানে থাকে। যেকোনো একতরফা যেন টুর্নামেন্টটা না হয়। সাধারণত বিশ্বকাপে কখনোই সেটা হয় না। আমি মনে করি এবারও একইরকম হবে।’