ঢাকা ০৪:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আফগানদের কাছে বিধ্বস্ত উগান্ডা

  • ডিপি ডেস্ক
  • আপডেট সময় ১০:৩৮:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪
  • 3

একদল খেলতে নেমেছে নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপে, আরেক দল বর্তমান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের উঠতি শক্তি। স্বাভাবিকভাবেই নবাগত দলটির পাত্তা পাওয়ার কথা না উঠতি শক্তির কাছে। তবে ঠিক এতো বাজেভাবে যে দলটি হারবে তা মনে হয় ভাবেনি কেউই, বলা হচ্ছিল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তান ও উগান্ডার মধ্যকার ম্যাচের কথা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পঞ্চম ম্যাচে আফগানদের কাছে রীতিমতো বিধ্বস্ত হয়েছে প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে নামা উগান্ডা।

মঙ্গলবার (৪ জুন) গায়ানার প্রভিডেন্স ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামে আফগানিস্তান ও উগান্ডা। যেখানে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করা আফগানদের ১৮৩ রানের জবাবে মাত্র ৫৮ রানে গুটিয়ে যায় নবাগত উগান্ডা। আফগানদের পক্ষে ফজল হক ফারুকি মাত্র ৯ রানের খরচায় নেন ৫ উইকেট। ১২৫ রানের বিশাল জয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শুভসূচনা করেছে রশীদ খানের আফগানিস্তান।

আফগানদের দেওয়া ১৮৪ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা উগান্ডা ম্যাচের শুরুতেই পথ হারায়। ফজলহক ফারুকীর করা প্রথম ওভারের প্রথম বল চার মেরে শুরু করেন উগান্ডার ওপেনার রোনাক প্যাটেল। তবে ফারুকীর পরের দুই বলেই দুই উইকেট হারায় নবাগত দলটি।

এরপর দ্বিতীয় ওভারেও একই দশা। ৪ রানে ২ উইকেট হারানো উগান্ডা ১৮ রান পর্যন্ত যেতেই হারায় ৫ উইকেট। তখন হার শুধু সময়ের ব্যাপার মাত্র। তবে এরপর রিয়াজাত আলী শাহ ও রবিনসন ওবুয়ার ব্যাটে চড়ে সর্বনিম্ন স্কোরের লজ্জা থেকে বাঁচে দলটি। তবে শেষ পর্যন্ত ৫৮ রানের বেশি যেতে পারেনি তারা। তাতে ১২৫ রানে বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আফগানিস্তান।

আফগানদের হয়ে ফারুকী ৪ ওভার বোলিং করে ৯ রানে নেন ৫ উইকেট। এছাড়াও নবীন-উল-হক দুইটি এবং অধিনায়ক রশীদ খানে ২টি উইকেট নেন। বাকি উইকেটটি গিয়েছে মুজিব উর রহমানের ঝুলিতে।

উগান্ডার ৫৮ রানে অলআউট টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চতুর্থ দলীয় সর্বনিম্ন রান। বিশ্বকাপে সর্বনিম্ন দলীয় রানের রেকর্ডটি অবশ্য নেদারল্যান্ডসের দখলে। ২০১৪ বিশ্বকাপে মাত্র ৩৯ রানে অলআউট হয়েছিল ডাচরা।

এর আগে প্রথম ইনিংসে দুই আফগান ওপেনার ইব্রাহিম জাদরান এবং রহমানউল্লাহ গুরবাজের ব্যাটে ভর করে ১৮৩ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে আফগানরা। ওপেনিং জুটি থেকেই রশীদ খানরা পান ১৫৪ রান। গুরবাজ ৪৫ বলে ৪ চার এবং ৪ ছয়ে ৭৬ রান করেন। আরেক ওপেনার ইব্রাহিম জাদরানের ব্যাট থেকে আসে ৭০ রান।

তবে ওপেনিং জুটি ভাঙার পর আর তেমন রান আসেনি আফগানদের। এমনকি দুই আফগান ওপেনার ছাড়া অন্য কোন আফগান ব্যাটার বাউন্ডারি হাঁকাতে পারেননি।

আফগানদের কাছে বিধ্বস্ত উগান্ডা

আপডেট সময় ১০:৩৮:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪

একদল খেলতে নেমেছে নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপে, আরেক দল বর্তমান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের উঠতি শক্তি। স্বাভাবিকভাবেই নবাগত দলটির পাত্তা পাওয়ার কথা না উঠতি শক্তির কাছে। তবে ঠিক এতো বাজেভাবে যে দলটি হারবে তা মনে হয় ভাবেনি কেউই, বলা হচ্ছিল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আফগানিস্তান ও উগান্ডার মধ্যকার ম্যাচের কথা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পঞ্চম ম্যাচে আফগানদের কাছে রীতিমতো বিধ্বস্ত হয়েছে প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে নামা উগান্ডা।

মঙ্গলবার (৪ জুন) গায়ানার প্রভিডেন্স ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামে আফগানিস্তান ও উগান্ডা। যেখানে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করা আফগানদের ১৮৩ রানের জবাবে মাত্র ৫৮ রানে গুটিয়ে যায় নবাগত উগান্ডা। আফগানদের পক্ষে ফজল হক ফারুকি মাত্র ৯ রানের খরচায় নেন ৫ উইকেট। ১২৫ রানের বিশাল জয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শুভসূচনা করেছে রশীদ খানের আফগানিস্তান।

আফগানদের দেওয়া ১৮৪ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা উগান্ডা ম্যাচের শুরুতেই পথ হারায়। ফজলহক ফারুকীর করা প্রথম ওভারের প্রথম বল চার মেরে শুরু করেন উগান্ডার ওপেনার রোনাক প্যাটেল। তবে ফারুকীর পরের দুই বলেই দুই উইকেট হারায় নবাগত দলটি।

এরপর দ্বিতীয় ওভারেও একই দশা। ৪ রানে ২ উইকেট হারানো উগান্ডা ১৮ রান পর্যন্ত যেতেই হারায় ৫ উইকেট। তখন হার শুধু সময়ের ব্যাপার মাত্র। তবে এরপর রিয়াজাত আলী শাহ ও রবিনসন ওবুয়ার ব্যাটে চড়ে সর্বনিম্ন স্কোরের লজ্জা থেকে বাঁচে দলটি। তবে শেষ পর্যন্ত ৫৮ রানের বেশি যেতে পারেনি তারা। তাতে ১২৫ রানে বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আফগানিস্তান।

আফগানদের হয়ে ফারুকী ৪ ওভার বোলিং করে ৯ রানে নেন ৫ উইকেট। এছাড়াও নবীন-উল-হক দুইটি এবং অধিনায়ক রশীদ খানে ২টি উইকেট নেন। বাকি উইকেটটি গিয়েছে মুজিব উর রহমানের ঝুলিতে।

উগান্ডার ৫৮ রানে অলআউট টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে চতুর্থ দলীয় সর্বনিম্ন রান। বিশ্বকাপে সর্বনিম্ন দলীয় রানের রেকর্ডটি অবশ্য নেদারল্যান্ডসের দখলে। ২০১৪ বিশ্বকাপে মাত্র ৩৯ রানে অলআউট হয়েছিল ডাচরা।

এর আগে প্রথম ইনিংসে দুই আফগান ওপেনার ইব্রাহিম জাদরান এবং রহমানউল্লাহ গুরবাজের ব্যাটে ভর করে ১৮৩ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে আফগানরা। ওপেনিং জুটি থেকেই রশীদ খানরা পান ১৫৪ রান। গুরবাজ ৪৫ বলে ৪ চার এবং ৪ ছয়ে ৭৬ রান করেন। আরেক ওপেনার ইব্রাহিম জাদরানের ব্যাট থেকে আসে ৭০ রান।

তবে ওপেনিং জুটি ভাঙার পর আর তেমন রান আসেনি আফগানদের। এমনকি দুই আফগান ওপেনার ছাড়া অন্য কোন আফগান ব্যাটার বাউন্ডারি হাঁকাতে পারেননি।