ঢাকা ০৬:১৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
টপ নিউজ :
কুষ্টিয়ায় পুুকুরে ডুবে তিন শিশুর মৃত্যু মরদেহ ফেরত পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবী পরিবারের চল্লিশ উর্ধ বয়সী স্কাউটারদের পায়ে হেঁটে ৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণে যাত্রা বেইলি রোডে আগুনে প্রাণ গেল ২ সাংবাদিকের কাচ্চি ভাই নয়, নিচের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত: র‌্যাব বেইলি রোডে আগুন: মৃতের সংখ্যা বাড়ার কারণ জানালেন চিকিৎসক ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রামের নির্মাণাধীন হিমাগারের আগুন বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রাষ্ট্রপতির শোক বেইলি রোডের আগুন লাগা বহুতল ভবনটিতে অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না: প্রধানমন্ত্রী ভবনে ভেন্টিলেশন ছিল না, নিহতরা ধোঁয়ায় মারা গেছেন

সাকিবের প্রচারে নির্বাচনি মাঠে মাশরাফি

নির্বাচনি প্রচারের অংশ হিসেবে নিজের এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এবার তার নির্বাচনি প্রচারে অংশ হলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

৪ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী সাকিব আল হাসানের পক্ষে প্রচারকার্যে অংশ নেন তিনি।

নৌকার পক্ষে ভোট চাইতে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নড়াইল থেকে মাগুরা জেলা পরিষদ ডাক বাংলোয় পৌঁছান মাশরাফি। সেখানে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে কিছু সময় কথা বলেন তিনি। এরপর সাকিবকে সঙ্গে নিয়ে ছাদ খোলা গাড়িতে নৌকা প্রতীকের লিফলেট বিতরণ করতে বেরিয়ে পড়েন মাশরাফি।

গত দু’দিন ধরে সৌম্য, রনিসহ বেশ কিছু জাতীয় ক্রিকেটার মাগুরায় এসে প্রচারে অংশ নিয়েছেন। আর এ প্রচারে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে মাশরাফি বিন মুর্তজা। নড়াইল-২ আসনের নৌকার প্রার্থী মাশরাফি নিজের প্রচার-প্রচারণা বাদ দিয়ে সতীর্থের ছুটে এসেছেন মাগুরায়। অন্যরা এসেছেন একদিন আগেই।

মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, মাগুরা আমার চেনা শহর। এখানকার বিভিন্ন এলাকা আমার পরিচিত। মাগুরা স্টেডিয়ামে বিকেএসপি অন্বেষণ ক্যাম্পে ছিলাম এক মাস। তবে এখন আমার মাগুরায় আসা সাকিবের জন্য। সে রাজনীতিতে নতুন। আমার মনে হয়েছে সাকিবের কাছে আসা দরকার।

নিজের প্রচার প্রচারণা রেখে সাকিবের প্রচারণায় কেন এসেছেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, ‘সাকিব রাজনীতিতে নতুন তাই তাকে সময় দিতে দুই ঘণ্টার জন্য মাগুরায় এসেছি।’ শহরের ভায়না মোড় থেকে প্রচারণা শেষ করে নড়াইলের উদ্দেশ্যে মাগুরা ত্যাগ করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

সাকিব আল হাসান বলেন, মাশরাফি ভাই এবং পাপন ভাইয়ের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। তাদের এ বিষয়ে অভিজ্ঞতা আছে। মাশরাফি ভাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি তিনি কষ্ট করে আমার কাছে এসেছেন সাপোর্ট জানাতে। আমিও ভাইকে সাপোর্ট জানাই। যেকোনো টাফ সিচুয়েশনে আমরা সব সময় একে অপরকে হেল্প করি। যেহেতু আমাদের জন্য এটি চ্যালেঞ্জিং একটি বিষয়, তাই আমরা চেষ্টা করছি একসঙ্গে যেন সবাই উৎরে যেতে পারি।

দৌলতপুরে প্রান্তিক কৃষকের মাঝে প্রণোদনার বীজ ও সার বিতরন

সাকিবের প্রচারে নির্বাচনি মাঠে মাশরাফি

আপডেট সময় ১১:০৪:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪

নির্বাচনি প্রচারের অংশ হিসেবে নিজের এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এবার তার নির্বাচনি প্রচারে অংশ হলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

৪ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী সাকিব আল হাসানের পক্ষে প্রচারকার্যে অংশ নেন তিনি।

নৌকার পক্ষে ভোট চাইতে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নড়াইল থেকে মাগুরা জেলা পরিষদ ডাক বাংলোয় পৌঁছান মাশরাফি। সেখানে জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সঙ্গে কিছু সময় কথা বলেন তিনি। এরপর সাকিবকে সঙ্গে নিয়ে ছাদ খোলা গাড়িতে নৌকা প্রতীকের লিফলেট বিতরণ করতে বেরিয়ে পড়েন মাশরাফি।

গত দু’দিন ধরে সৌম্য, রনিসহ বেশ কিছু জাতীয় ক্রিকেটার মাগুরায় এসে প্রচারে অংশ নিয়েছেন। আর এ প্রচারে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে মাশরাফি বিন মুর্তজা। নড়াইল-২ আসনের নৌকার প্রার্থী মাশরাফি নিজের প্রচার-প্রচারণা বাদ দিয়ে সতীর্থের ছুটে এসেছেন মাগুরায়। অন্যরা এসেছেন একদিন আগেই।

মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, মাগুরা আমার চেনা শহর। এখানকার বিভিন্ন এলাকা আমার পরিচিত। মাগুরা স্টেডিয়ামে বিকেএসপি অন্বেষণ ক্যাম্পে ছিলাম এক মাস। তবে এখন আমার মাগুরায় আসা সাকিবের জন্য। সে রাজনীতিতে নতুন। আমার মনে হয়েছে সাকিবের কাছে আসা দরকার।

নিজের প্রচার প্রচারণা রেখে সাকিবের প্রচারণায় কেন এসেছেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, ‘সাকিব রাজনীতিতে নতুন তাই তাকে সময় দিতে দুই ঘণ্টার জন্য মাগুরায় এসেছি।’ শহরের ভায়না মোড় থেকে প্রচারণা শেষ করে নড়াইলের উদ্দেশ্যে মাগুরা ত্যাগ করেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

সাকিব আল হাসান বলেন, মাশরাফি ভাই এবং পাপন ভাইয়ের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। তাদের এ বিষয়ে অভিজ্ঞতা আছে। মাশরাফি ভাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি তিনি কষ্ট করে আমার কাছে এসেছেন সাপোর্ট জানাতে। আমিও ভাইকে সাপোর্ট জানাই। যেকোনো টাফ সিচুয়েশনে আমরা সব সময় একে অপরকে হেল্প করি। যেহেতু আমাদের জন্য এটি চ্যালেঞ্জিং একটি বিষয়, তাই আমরা চেষ্টা করছি একসঙ্গে যেন সবাই উৎরে যেতে পারি।