ঢাকা ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চাইলেন বাইডেন

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শুক্রবার (৭ জুন) প্যারিসে জেলেনস্কির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এ ঘটনা ঘটে।

আনাদোলু এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেনে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্যাকেজ পাঠাতে দেরি হওয়ায় বাইডেন দুঃখ প্রকাশ করেন। এ জন্য তিনি জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চান।

জো বাইডেন বলেন, প্রয়োজনীয় তহবিল কয়েক সপ্তাহ ধরে অনুমোদনের অপেক্ষায় আটকে ছিল। রক্ষণশীল সদস্যদের কারণে বিলটি পাস করতে দেরি হয়।

ইউক্রেনকে তিনি আরও বলেন, আপনারা মাথা নত করেননি। যেভাবে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তা অসাধারণ। যুক্তরাষ্ট্র কখনও আপনাদের থেকে দূরে সরে যাবে না।

রাশিয়ার আক্রমণের পর থেকে ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা পাঠিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছরের শুরুতে যুদ্ধের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু সরঞ্জাম পাঠানোর কথা ছিল। কিন্তু সহায়তা বিলটি আটকে দেয় রিপাবলিকান প্রতিনিধিরা। এতে প্রতিশ্রুত সময়ে ইউক্রেনে সহায়তা পাঠাতে ব্যর্থ হয় যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে ইউক্রেনকে আরও সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জো বাইডেন। এর মধ্যে যুদ্ধে বিধ্বস্ত বৈদ্যুতিক গ্রিড পুনর্গঠনে সহায়তার জন্য ২২৫ মিলিয়ন ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া প্রয়োজন মতো আরও সহায়তার আশ্বাস দেন।

ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরুর পর ন্যাটো ও ইউরোপের দেশগুলোকে দিয়ে রাশিয়াকে দুই বছরের বেশি সময় ধরে শাসিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি মার্কিন অস্ত্র ব্যবহার করে রুশ ভূখণ্ডে হামলার অনুমতি দেন বাইডেন।

অপরদিকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে উত্তর কোরিয়ার তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে ইউক্রেনের ভূখণ্ডে হামলার অভিযোগ তুলেছে জেলেনস্কি প্রশাসন। যুদ্ধে ইরানের তৈরি সামরিক ড্রোন ব্যবহারের অভিযোগও রয়েছে পুতিন বাহিনীর বিরুদ্ধে।

জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চাইলেন বাইডেন

আপডেট সময় ০৩:১২:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০২৪

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শুক্রবার (৭ জুন) প্যারিসে জেলেনস্কির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে এ ঘটনা ঘটে।

আনাদোলু এজেন্সির প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেনে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্যাকেজ পাঠাতে দেরি হওয়ায় বাইডেন দুঃখ প্রকাশ করেন। এ জন্য তিনি জেলেনস্কির কাছে ক্ষমা চান।

জো বাইডেন বলেন, প্রয়োজনীয় তহবিল কয়েক সপ্তাহ ধরে অনুমোদনের অপেক্ষায় আটকে ছিল। রক্ষণশীল সদস্যদের কারণে বিলটি পাস করতে দেরি হয়।

ইউক্রেনকে তিনি আরও বলেন, আপনারা মাথা নত করেননি। যেভাবে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তা অসাধারণ। যুক্তরাষ্ট্র কখনও আপনাদের থেকে দূরে সরে যাবে না।

রাশিয়ার আক্রমণের পর থেকে ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা পাঠিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছরের শুরুতে যুদ্ধের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কিছু সরঞ্জাম পাঠানোর কথা ছিল। কিন্তু সহায়তা বিলটি আটকে দেয় রিপাবলিকান প্রতিনিধিরা। এতে প্রতিশ্রুত সময়ে ইউক্রেনে সহায়তা পাঠাতে ব্যর্থ হয় যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে ইউক্রেনকে আরও সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জো বাইডেন। এর মধ্যে যুদ্ধে বিধ্বস্ত বৈদ্যুতিক গ্রিড পুনর্গঠনে সহায়তার জন্য ২২৫ মিলিয়ন ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়া প্রয়োজন মতো আরও সহায়তার আশ্বাস দেন।

ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরুর পর ন্যাটো ও ইউরোপের দেশগুলোকে দিয়ে রাশিয়াকে দুই বছরের বেশি সময় ধরে শাসিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি মার্কিন অস্ত্র ব্যবহার করে রুশ ভূখণ্ডে হামলার অনুমতি দেন বাইডেন।

অপরদিকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে উত্তর কোরিয়ার তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে ইউক্রেনের ভূখণ্ডে হামলার অভিযোগ তুলেছে জেলেনস্কি প্রশাসন। যুদ্ধে ইরানের তৈরি সামরিক ড্রোন ব্যবহারের অভিযোগও রয়েছে পুতিন বাহিনীর বিরুদ্ধে।